অজুহাত দিতে চান না তামিম

খেলাধুলা ডেস্ক
অক্টোবর ২৪, ২০১৭
তামিম ইকবাল তামিম ইকবাল

দক্ষিণ আফ্রিকায় কল্পনাতীত খারাপ করেছে বাংলাদেশ দল। এর মধ্যে আবার ছিলো ইনজুরির ছোবল। সেই ইনজুরিতে পড়েই আগেভাগে দেশে চলে এসেছেন তামিম ইকবাল। তিনি দেশে পৌছে বললেন, দক্ষিণ আফ্রিকায় পারফরম্যান্সের জন্য কন্ডিশনকে কোনো অজুহাত বানাতে চান না।

দক্ষিণ আফ্রিকায় খেলা নিয়ে এই বাহাতি ওপেনার বলছিলেন, ‘আমরা সবাই জানি, আমাদের বেস্ট অ্যাবিলিটি অনুযায়ী কেউ পারফম করতে পারি নাই। স্পেশালিও ওয়ানডে ও টেষ্টে। সব কিছু থেকেই মানুষ শিক্ষা নেয়। আমাদের জন্য বড় লার্নিং ট্যুর ছিল। আমাদের যে ল্যাকিংস যা ছিল আমাদের মধ্যে আমি শিওর ব্যাটসম্যান-বোলার বলেন অ্যাজ অ্যা টিম বলেন কম-বেশি সবাই বুঝতে পেরেছি। এখনও দুটা ম্যাচ বাকি আছে। আশা করবো যে ওই ফরম্যাটে ভাল কিছু করবো। আমার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূণ যেটা মনে হয় এই যে একটা বাজে টুর হলো বা প্রত্যাশা অনুযায়ী খেলেতে পারি নি। এই জিনিসটা ভুলে গেলে হবে না। এই জিনিসটা মাথায় রেখে কাজ করতেব হবে।’

তামিম বলছিলেন, কন্ডিশন কঠিন থাকলেও সেটাকে অজুহাত হিসেবে দাড় করানোর মতো কিছু ছিলো না, ‘কন্ডিশন কঠিন হবে এটা আমরা সবাই জানতাম। কিন্ত কন্ডিশনকে দোষশ দিয়ে বা আমরা ওখানে অনেক দিন যাই নাই। এটা অজুহাত হিসেবে দেখাতে চাই না। আমার কাছে মনে হয় অ্যাজ অ্যা টিম এবং ব্যক্তিগতভাবে আমরা যতটা সক্ষম আমরা অতটা খেলেতে পারি নাই। টিম হিসেবে বা ব্যক্তিগতভাবে যদি খেলতে না পারি ম্যাটার করে না দেশে খেলছি না বিদেশে খেলছি।’

সবশেষে এই ইনফর্ম ওপেনার বলেছেন, এই সফরের শিক্ষাটা কাজে লাগাতে হবে, ‘একটা যদি বাজে ট্যুর হিসেবে চিন্তা করে যদি ভুলে যাই তাহলে কিন্তু আমরা উন্নতি করবো না। এখানে কী ল্যাকিংস ছিল এই জিনিসটা ফাইন্ড আউট করতে হবে। তারপর ওটার উপরে প্ল্যান করে আগাতে হবে।  আমরা জানি ২০১৯ বিশ্বকাপ ইংল্যান্ডে। সেখানে খেলাও কঠিন আমাদের জন্য। এই্সব কিছু মাথায় রেখে আগাতে হবে। ব্যক্তিগতভাবে বলেন টিম হিসেবে বলেন, আমার যদি ব্যক্তিগতভাবে কোনো সমস্যা ফিল করেছি সাউথ আফ্রিকায় যেটা আমার ইমপ্রুভ করা দরকার তা করতে হবে। যদি না করি তাহলে তো আগাবে না।’

 

Category : ফিচার
Share on your Facebook
Share this post