‘গেইলকে দেখে অনেকে এমনিতেই নার্ভাস হয়ে যায়’

খেলাধুলা ডেস্ক
ডিসেম্বর ৫, ২০১৬
একদিন বাদেই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। একদিন বাদেই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ।

একদিন বাদেই গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ। রাজশাহী কিংসের বিপক্ষে হেরে গেলেই বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) চতুর্থ আসর থেকে ছিটকে যাবে চিটাগং ভাইকিংস। সেই ম্যাচের আগে সংবাদ সম্মেলনে হাজির হলেন অধিনায়ক তামিম ইকবাল।

সামনের লম্বা নিউজিল্যান্ড সফর

এবার যারা পারফরম করেছে তাদের বেশিরভাগই স্থানীয় খেলোয়াড়। এত ভালো ভালো বিদেশি খেলোয়াড় থাকার পরও স্থানীয় ক্রিকেটাররা ভালো করছে এবারের বিপিএলে এটাই সবচেয়ে বড় ব্যাপার। যে কোনো বড় সিরিজের আগে বা সফরের আগে যখন আপনি বড় রান করেন বা অনেক উইকেট পান সেটা একটু হলেও তো আপনাকে আত্মবিশ্বাস দেয়। আশা করি, যারা ভালো করছে তারা এটা ধরে রাখবে। বাংলাদেশের হয়ে যখন খেলবে তখনও এটা ধরে রাখতে পারবে।

ক্রিস গেইল

যখন ক্রিস গেইলের মতো কোনো খেলোয়াড় দলে আসে তখন ফোকাসটা তার দিকে ঘুরে যায়। আমি কখনও চাইনি এটা হোক- আমাদের খেলোয়াড়দের ফোকাসটা ওর দিকে ঘুরে যাক। তাহলে হয়কি, এমন একজন খেলোয়াড় যখন রান না করে তখন দল মানসিকভাবে অনেকটা ভেঙে পড়ে। এই জিনিসটা আমাদের মধ্যে হয়নি। ও হয়তো ওর মতো অতটা ভালো খেলতে পারেনি। কিন্তু অন্যরা যারা ছিল, তারা চেষ্টা করেছে। গেইল রান পায়নি বলে যে আমি খুব কষ্ট পেয়েছি তা নয়। আমি জানি যে, কোনো মুহূর্তে এমন একটা ইনিংস খেলবে যেটা ম্যাচকে একপেশে করে দিবে। এই দিক থেকে আমি খুশি যে গত চার ম্যাচে সে খুব বেশি রান করেনি। আশা করবো যে পরের ম্যাচ গুলোতে এক-দুইটা বড় পারফরম্যান্স দিয়ে দেয়- যার সামর্থ্য তার আছে, তাহলে আমাদের জন্য কাজটা খুব সহজ হবে।

আফিফ হোসেন ধ্রুব’র বোলিং

পাঁচ উইকেটে পেয়েছে, ভালো বল করেই পাঁচ উইকেট পেয়েছে। আমি আসলে ওকে ফেইস করতে পারিনি। আমি ম্যাচের প্রথম বলেই আউট হয়ে গেছি। ১৭ বছরের একটি বাংলাদেশি ছেলে খুব ভালো ব্যাটিং সাইডের বিপক্ষে ৫ উইকেট পেয়েছে। গেইলকে দেখে অনেকে এমনিতেই নার্ভাস হয়ে যায় ওর বিপক্ষেও ভালো বোলিং করেছে। আমি ওর জন্য খুশি, আমি বাংলাদেশের জন্য খুশি। আশা করি, একটা ম্যাচ না। এটা ভবিষ্যতেও ভালো করবে। ও যদি ভালো করে সেটা আমাদের জন্য ভালো তাই না?

কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়েছেন কিছু

স্মিথ ৭০ রান করেও পরের ম্যাচে খেলতে পারেনি। কারণ, আমরা চারজন বিদেশি খেলোয়াড়ই খেলাতে পারি। ক্রিস যখন এসেছে তখন স্বাভাবিকভাবে আমরা ওর সঙ্গেই যাব। জিনিসটা ওও ভালোভাবে নিয়েছে, ইতিবাচকভাবে নিয়েছে। আমাদের মনে হয়েছে, ক্রিস আরও বেশি বিপজ্জনক। চিটাগং দলের একটা কথা বলতে চাই, যেভাবে এই দল দৃঢ়তা দেখিয়েছে, প্রথম পাঁচ ম্যাচের চারটাতে হার, সেখান থেকে টানা ৫ ম্যাচ জেতা- এটা আমাদের কাছ থেকে কেউ নিয়ে যেতে পারবে না। দলে যখন দৃঢ়তা দেখানোর দরকার ছিল দল তখন সেটা দেখিয়েছে। এখন একটা পরিস্থিতি, যেখানে আমরা যদি ভালো খেলি এগোবো। না খেললে আমি এটা ইতিবাচকভাবে, খুশিমনে মেনে নেব।

তামিম-নবী

ব্যক্তিগত অর্জন আমার কাছে কোনো ব্যাপার নয়। যদি দল এগোতে থাকে সাথে এই বিষয়গুলোও আসে তখন ভালো লাগে। কিন্তু দল যদি না এগোয় আর এই অর্জনগুলো আসে তখন আর ততটা ভালো লাগা থাকে না। আপনি যদি বড় স্কোর করেন বা সর্বোচ্চ উইকেট নেন ব্যক্তিগতভাবে আপনার ভালো লাগবে। এখনই আসল খেলাগুলো। এখন যারা পারফরম করবে আমার মনে হয় ওদের অবদানই সবচেয়ে বড়। আমাদের দলে যারা সেভাবে পারফরম করতে পারেনি তারা যদি এখন পারফরম করতে শুরু করে আমার হয় সেটাও আমরা যারা করেছি সেটার মতো সমান গুরুত্বপূর্ণ হবে। 

Share this post