শেষ অবদি লড়াই পেশাদারিত্ব: মাশরাফি

খেলাধুলা ডেস্ক
ডিসেম্বর ২, ২০১৬
 মাশরাফি বিন মুর্তজা মাশরাফি বিন মুর্তজা

বলা হয়, সেই প্রকৃত যোদ্ধা, যে পরাজয় নিশ্চিত জেনেও শেষ প্রানবিন্দু অবশিষ্ট থাকা অবদি লড়াই করতে পারে। সেই যোদ্ধা চরিত্রটা দেখাচ্ছে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। অনেক আগেই টূর্নামেন্ট থেকে বাতিল হয়ে গিয়েছিলো তারা। সামনে ছিলো কেবল অসম্ভব এক সমীকরণ। সেখান থেকেই শেষ অবদি লড়তে লড়তে সমীকরণকে প্রায় কাছে নিয়ে এসেছে দলটি।

গতকাল সংবাদ সম্মেলনে মাশরাফি বিন মুর্তজা বলছিলেন, এটাই পেশাদারিত্ব

এখনকার এই জয়গুলো আসলে কী অর্থ বহন করে?

শেষ কয়েকটা ম্যাচ জিততে পারায় খেলোয়াড়দের ভালো লাগবে। আগেও বলেছিলাম, টুর্নামেন্টের সেরা হওয়া সবসময়ই কঠিন। পেশাদারিত্ব এমন একটা ব্যাপার যেখানে, আপনি শেষ পর্যন্ত লড়াই করছেন কি না এটা দেখার বিষয়। আমরা কোথাও ছিলাম না, সেখান থেকে শেষ তিনটা ম্যাচ জেতা আমাদের জন্য অনেক বড় পাওয়া। প্রত্যেক খেলোয়াড়ের জন্য ভবিষ্যতের জন্য এটা একটা অভিজ্ঞতা হয়ে থাকবে- কঠিন সময় থেকে কিভাবে ঘুরে দাঁড়াতে হয়। আমরা জয়ের ধারায় আসতে পেরেছি, এটা খুব ভালো লেগেছে।

দ্রুত ম্যাচ বের করে ফেলার কোনো লক্ষ্য ছিলো?

আমরা আজকে চেষ্টা করেছিলাম, ১৫/১৬ ওভারের মধ্যে ম্যাচটা জিততে। নিজেদের জন্য সুযোগটা রাখা আরকি। শেষ ম্যাচে যদি কোনো সুযোগ আসে, তো চেষ্টা করা। আমরা প্রথম ৬ ওভার ব্যবহার করতে পারিনি।

নিজেকে ওপরে এনে ব্যাটিং করার যুক্তিও কী এটাই?

মিটিংয়ে বলা হয়েছিল, শেহজাদ, ইমরুল প্রথম থেকেই চড়াও হবে। শুরুতেই শেহজাদ আউট হওয়ায় চাপ চলে আসে। চাপ থাকাতে ওরা শট খেলতে পারেনি। মিডিলে এসে চেষ্টা করেছি।

শর্ট রানআপে বল করতে হচ্ছে আপনাকে...

আমার একটা সুবিধা হচ্ছে, শর্ট রানআপে বল করলেও আমার পেস একই থাকে। আরেকটা সুবিধা হচ্ছে, এভাবে বল করতে আমার সমস্যা হয় না। অনুশীলনে শর্ট রানআপে অনেক বল করেছি। যখন চোট-টোট ছিল তখন শর্ট রানআপে প্রচুর বল করেছি। ওই অভ্যাসটা আমার আছে। এই জন্য অন্য পেসারদের যে সুবিধাটা থাকে না, আমার ক্ষেত্রে সেটা থাকে। কারণ, চোটের সময় শর্ট রানআপে প্রচুর বল করেছি। ওই অভ্যাসটা থাকায় আমার সুবিধা হয়েছে।

 

Share this post