ছোট দলের বড় পারফরমার রবিউল

আল-মামুন
মে ৬, ২০১৭
 ২৬ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার খেলাধুলা.কমের সাথে নিজের ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন। ২৬ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার খেলাধুলা.কমের সাথে নিজের ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন।

ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগের চলতি আসরের শুরু থেকেই ধারাবাহিক পারফরম করে যাচ্ছেন রবিউল ইসলাম রবি। লিগের সর্বশেষ সাত ম্যাচে ৩৯৬ রান করে সবার উপরে খেলাঘর সমাজ কল্যাণ সমিতির এই ক্রিকেটার। তার পারফরম্যান্সে ভর করে ইতোমধ্যে ছয় ম্যাচের দু’টিতে জিতেছে প্রিমিয়ারের এবারের আসরের নতুন দলটি।

ভাল অবস্থানে আছে সপ্তম ম্যাচেও। লিগে ধারাবাহিক পারফম করে যাওয়া ২৬ বছর বয়সী এই অলরাউন্ডার খেলাধুলা.কমের সাথে নিজের ভবিষ্যত পরিকল্পনা নিয়ে খোলামেলা কথা বলেন।

প্রিমিয়ারে শুরু থেকেই নিয়মিত পারফরম করে যাচ্ছেন। কতটা চ্যালেঞ্জিং?

সব সময়ই ইচ্ছা থাকে যে ভালো করার। গতবছর প্রিমিয়ার লিগের রানার্সআপ দল প্রাইম দোলেশ্বরের হয়ে খেলেছি। কিন্তু টিম কম্বিনেশনের কারণে সব ম্যাচে সুযোগ পাইনি। এবছর ইচ্ছাই ছিলো ভালো কিছু করার। তো যে রকম যাচ্ছি সেরকম হচ্ছেও। ডিসিপ্লিন ব্যাটিংও করতেছি। ভালো হচ্ছে। এজন্য নিজের পারফরম্যান্স নিয়ে খুশি।

৬ ম্যাচে ২৯৩ রান ছিল আপনার। সাত ম্যাচ শেষেও আপনি সবার ওপরে। কেমন লাগছে?

এটাই তো আর শেষ না। আমি একজন ক্রিকেট খেলোয়াড় হিসেবে সামনে যে কয়টা ম্যাচ আছে, সেখানেও ভালো করতে চাই। লিগ শেষে নিজেকে রান সংগ্রহের দিক থেকে নাম্বার ওয়ানে দেখতে চাই। আসলে নিয়মিত পারফরম করতে পারলে ভালো হয়। আমি যেমন জাতীয় লিগে খুলনার ক্রিকেটার হিসেবে খুলনার হয়ে খেলি। কিন্তু, জাতীয় দলের অধিকাংশ ক্রিকেটার খুলনার হওয়ায় বিভাগের হয়ে সেভাবে সুযোগ হয়না।

আপনি কি তাহলে বলছেন সুযোগের অভাব ছিল?

সত্যি যদি বলি, আপনাকে ভালো করতে হলে আগে দরকার সুযোগ। যদি সুযোগ পান তাহলে চেষ্টা থাকে ভালো করার। এখন প্রিমিয়ারে যেমন খেলার সুযোগ পাচ্ছি, প্রতিটি ম্যাচেই নিজ থেকে একটা পরিকল্পনা করতে পারছি। ম্যাচে কি করব। কি করা উচিৎ। নিজের মতো করে খেলতে পারলে আমার মনে হয় আমি ভালো করব।

নিজেদের দল নিয়ে যদি বলেন?

আসলে আমাদের খেলাঘর শুরুর দিকে কিন্তু ভালো ভারসাম্যপূর্ণ দল গঠনে করেছিলো। সেই দলে আমি ছিলাম। কিন্তু দলবদলের পাঁচদিন আগে সেই লাইনআপ ভেঙে যায়। তখন আমিও অন্য কোন ওয়ে খুজে পাচ্ছিলাম না যে, কোথায় যাব কোথায় খেলব। তখন থেকে গেলাম। সেই টিম থাকলে খুব ভালো হতো। আমরা ভালোভাবে ফাইট দিতে পারতাম। তবে এই টিম আমাকে ভালোবাবে চাওয়ায় থেকে গেছি।

প্রিমিয়ারে আপনাদের দলের লক্ষ্য?

আমাদের প্রথমত লক্ষ্য সুপার লিগে খেলা। সেভাবেই আমরা খেলছি। সেই চিন্তা মাথায় আছে। এর আগেও দুইবার প্রথম বিভাগে চ্যাম্পিয়ন হয়ে প্রিমিয়ারে এসে স্থায়ী হতে পারেনি খেলাঘর। আমরা চাইবো এবার সুপার লিগে খেলতে। অনন্তত রেলিগেশনে যেন পড়তে না হয়।

লিগে আপনার ব্যক্তিগত লক্ষ্য?

লক্ষ্য নিয়ে যদি বলি তাহলে বলব। সেরা স্কোরার হওয়া। সেটাকে সামনে রেখেই খেলছি। এখন যেভাবে খেলছি, আল্লাহর রহমতে যদি এভাবে খেলতে পারি তাহলে সম্ভব হবে।

Share on your Facebook
Share this post