চেস্ট বাম্প: ছড়াচ্ছে ম্যাশকিন

উদয় সিনা
ডিসেম্বর ১৪, ২০১৬
 মাশরাফি আর তাসকিনের উদযাপন মাশরাফি আর তাসকিনের উদযাপন

২০১৫ আইসিসি ক্রিকেট বিশ্বকাপের দ্বিতীয় কোয়ার্টার ফাইনালের ২৮ তম ওভারের শেষ বল। তাসকিন আহমেদের করা অফস্ট্যাম্পের বাইরে ফুলার লেন্থের ডেলিভারি অজিঙ্কা রাহানে এক্সট্রা কভারের উপর দিয়ে খেলার চেষ্টা করলে ধরা পড়েন সাকিব আল হাসানের হাতে।

সরাসরি তাসকিনের দিকে ছুটে যান তাঁর সতীর্থরা। কিন্তু তাসকিন ছুটে যান অধিনায়কের দিকে। আচমকা তাসকিন ও মাশরাফিকে দেখা গেল লাফ দিয়ে বুকের সাথে বুকের ধাক্কা দেয়ার উদযাপন করতে। পরপর দুবার উদযাপনের দ্বিতীয়বার তো দুজনই মাটিতে পড়ে যান।

সেদিন ক্রিকেট বিশ্ব দেখেছিল এক ভিন্নরকম উদযাপন। বিখ্যাত হয়ে যায় ক্রিকেটের জন্য নতুন এক উদযাপন-ম্যাশকিন।

ইদানিং ব্যাপারটা শুধু আর মাশরাফি আর তাসকিনের মধ্যে সীমাদ্ধ নেই। অনেক দেশের ক্রিকেটাররাই উইকেট পাওয়ার পর করলেন এই উদযাপন। সাথে সাথে বিশ্ব মিডিয়ায় বারবার আসছে-ম্যাশকিন করে দেখালেন আরো এক জুটি!

ম্যাশকিন উদযাপনের শুরু অবশ্য বিশ্বকাপের ওই ম্যাচের একটু আগে। ২০১৪ সালে ভারতের বিপক্ষে ঘরের মাটিতে সিরিজে তাসকিন অভিষেক ম্যাচে নিয়েছিলেন ৫ উইকেট। সেই ৫ উইকেটের কোনো একটি উইকেট নেওয়ার পরই প্রথমবারের মতো হয়েছিলো এই উদযাপন।

তাসকিন নিজেই বলেছেন, ‘শুরু হয়েছিলো গত বছর ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডেতে। ওই যে আমার অভিষেক ম্যাচে ৫ উইকেট পেলাম, ওই ম্যাচে। ম্যাচের আগে মাশরাফি ভাইকে বলছিলাম, ‘ভাই আপনার সঙ্গে খেলতে নামছি; উইকেট পেলে একটু আলাদা রকম কিছু সেলিব্রেশন করতে চাই।’ এটাই যে করবো, তা তো জানতাম না। পরে উইকেট তো একটার পর একটা পেতে থাকলাম। কোন একটা উইকেট পাওয়ার পর মাশরাফি ভাই ছুটে এসে লাফ দিলেন; আমিও লাফ দিলাম। হয়ে গেলো।’

বুকের সাথে বুকের ধাক্কার এই যে উদযাপন সেটা দেখা যায় যাকে ইংরেজিতে বলে চেস্ট বাম্প। একসময় এই উদযাপনের একটা নামও দিয়ে দেয়া হয়। ক্রিকেটে চেস্ট বাম্প উদযাপনের আগমন মাশরাফি ও তাসকিনের হাত ধরে হলেও টেনিসে কিন্তু অনেক আগে থেকেই এটি চলে আসছে। টেনিসে চেস্ট বাম্পের জন্য সবচেয়ে পরিচিত মুখ 'দ্য ব্রায়ান ব্রাদার্স' খ্যাত দুই আমেরিকান জমজ ভাই মাইক ব্রায়ান ও বব ব্রায়ান।

মাইক ব্রায়ান বব ব্রায়ানের চেয়ে মাত্র দুই মিনিটের বড়। মাশরাফি ও তাসকিন যেমন তাদের ক্রিকেট ক্যারিয়ারে সফল তেমনি মাইক ও বব টেনিসে সফল দুটি নাম। ইন ফ্যাক্ট দ্বৈত টেনিসে সর্বকালের সফল জুটি হিসেবে বিবেচনা করা হয় 'দ্য ব্রায়ান ব্রাদার্স'কে। তাঁরা দল হিসেবে এখন পর্যন্ত জিতেছে ১৬ টি গ্র্যান্ডস্ল্যাম । আর উইনিং পয়েন্ট সবসময় চেস্ট বাম্পের মাধ্যমে উদযাপন করেন মাইক ব্রায়ান ও বব ব্রায়ান।

টেনিসে মাইক ও বব চেস্ট বাম্প উদযাপনের জন্য বিখ্যাত হলেও ক্রিকেট পাড়ায় কিন্তু মাশরাফি ও তাসকিনই এর জন্য সবচেয়ে পরিচিত। বিশেষ করে বাংলাদেশে ম্যাশকিন উদযাপন খুব জনপ্রিয়। বিভিন্ন সময় দেশের রাস্তা ঘাটে, মাঠে এমনকি স্টেডিয়ামের গ্যালারিতেও দেখা যায় ম্যাশকিন উদযাপন। তাছাড়া ক্রিকেটে অন্যান্য দলেও ম্যাশকিন উদযাপন করার প্রচেষ্টা দেখা গেছে ইদানিং।

এবছর এশিয়া কাপ টি-২০ তে বাংলাদেশের বিপক্ষে সংযুক্ত আরব আমিরাতের রোহান মুস্তফা ও মোহাম্মদ নাভিদকে দেখা যায় ম্যাশকিন উদযাপন করতে। সেইসাথে ভারতের একটি মোবাইল ফোনের বিজ্ঞাপনচিত্রেও দেখা যায় উদযাপনটি। সর্বোপরি মাইক ব্রায়ান ও বব ব্রায়ানদের চেস্ট বাম্প এখন মাশরাফি ও তাসকিনের মাধ্যমে ক্রিকেট বিশ্বেও ছড়িয়ে পড়ছে। রোহান মুস্তফা ও মোহাম্মদ নাভিদের ম্যাশকিন উদযাপনের সেই প্রচেষ্টা কিন্তু তাই প্রমাণ করে।

এতো আলোচনা যাদের উদযাপন নিয়ে, সেই তাসকিন কিন্তু বলছেন, এই উদযাপন নিয়ে আলাদা করে ভাবেনই না তারা। এটা হয়ে যায়, ‘হা হা হা....। আমরা খেলার বাইরে বিশ্বাস করেন, এটা কখনো করিনি। আসলে যখন উইকেট পাই, তখন সবকিছু মনে হয় অটোমেটিক হয়ে যায়। এ সময় আর অনুশীলন লাগে না। সারা পৃথিবীতে যারা অন্যান্য খেলায় এই সেলিব্রেশন করে, তারা কেউ মনে হয় ভেবে করে না। এটা হয়ে যায়।’

এখন অপেক্ষা করা যাক, নিউজিল্যান্ডেও কিছু ম্যাশকিন হওয়ার জন্য।

Category : ফিচার
Share on your Facebook
Share this post