কোচ সালাউদ্দিন: একটি জাতীয় সম্পদের অপচয়

ফারদিন মির্জা
নভেম্বর ২৫, ২০১৭
এবার কি প্রাপ্য সম্মান পাবেন সালাউদ্দিন? এবার কি প্রাপ্য সম্মান পাবেন সালাউদ্দিন?

মোহাম্মদ সালাউদ্দিন।সবার কাছে একটি পরিচিত নাম। কারণ বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট টিমে বেশিরভাগ ক্রিকেটার তাঁর হাত ধরে এসেছেন। তিনি উপহার দিয়েছেন সাকিব, মুশফিক, নাঈম, নাসির কিংবা সৌম্যদের মত খেলোয়াড়দের। বাংলাদেশের সবচেয়ে অভিজ্ঞ ও হাই প্রোফাইল কোচ তিনি। কিন্তু আমরা কি তার সঠিক ব্যবহার করছি?

বছরের মাঝখানে হওয়া অস্ট্রেলিয়া বনাম বাংলাদেশের টেস্ট সিরিজের মধ্যে বিসিবি মোহাম্মদ সালাউদ্দিনকে গত চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতে চলে যাওয়া ব্যাটিং কোচ থিলান সামারাবিরার অভাব পূরণ করতে সাময়িক ভাবে ব্যাটিং পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেয়। কিন্তু ঈদের ছুটির মধ্যে তাকে ডেকে এনে বিসিবির সিইও নিজামুদ্দীন জানায় তাকে আর তাদের দরকার নেই। এরকম অপমানজনক ঘটনার ব্যাখ্যায় বিসিবি কোন কারণ দেখায়নি।

মোহাম্মদ সালাউদ্দিন ২০০৫-২০০৯ পর্যন্ত ডেভ হোয়াটমোর ও জেমি সিডন্স এর সহকারী কোচ হিসেবে বাংলাদেশ জাতীয় টিমে কাজ করেছেন এবং দুজনই সালাউদ্দিনের কাজে খুব খুশি হয়েছেন এবং প্রশংসাও করেছিলেন তাঁর সাথে কাজ করে। তিনি ২০০৮-২০০৯ অতিরিক্ত দায়িত্ব হিসেবে বাংলাদেশের ফিল্ডিং কোচের দায়িত্বও পালন করেছিলেন। তারপর তিনি মালয়েশিয়ার একটি বিশ্ববিদ্যালয়ে চাকরি নেন।

কিন্তু যখনই তামিম, সাকিব, মুশফিকের পারফরমেন্স খারাপ হয়েছে, তাদেরকে সালাউদ্দিনের শরণাপন্ন হতে দেখা গেছে। সালাউদ্দিনও পুরোনো শিষ্যদের নির্দ্বিধায় সময় দিতেন। এখনও টিভিতে সেই দৃশ্যগুলো দেখা যায়। যখন তাদের পারফরম্যান্সে ছোট ছোট ভুল থাকে বা আত্মবিশ্বাস কমে যায়, তখনই সালাউদ্দিনকে তারা পাশে পায়।

২০১৬ আইপিএলে যখন সাকিবের ব্যাটিং ভাল হয়নি, তখন এই সালাউদ্দিনই কিছু দিনের সময় বের করে সাকিবের জন্য ছুটে এসেছিলেন। আব্দুর রাজ্জাকের বোলিং অ্যাকশন যখন অবৈধ ঘোষণা করা হয়, তখন সালাউদ্দিন তাকে নিয়ে কাজ করেছিলেন তার বোলিং ঠিক করতে। সালাউদ্দিন বিকেএসপি’র হেড কোচ ছিলেন।

তিনি বর্তমানে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের সাথে কাজ করছেন যারা প্রথমবারের মত ২০১৭ ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের চ্যাম্পিয়ন হয়। এবার বিপিএলে সালাউদ্দিন কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের কোচ হয়ে আছেন, যে দলকে ২০১৫ সালে প্রথমবারের মত বিপিএল জিতিয়েছিলেন তিনি।

চান্দিকা হাতুরুসিংহের আকস্মিক পদত্যাগে নতুন হাই প্রোফাইল বিদেশি কোচ খুঁজছে বিসিবি। তবে আগামী শ্রীলঙ্কা সিরিজে ভারপ্রাপ্ত হিসেবে দেশের কাউকেই দায়িত্ব দেওয়া হচ্ছে এমনই আভাস পাওয়া গেছে, যেখানে খালেদ মাহমুদ সুজন আলোচিত নাম হয়ে উঠে এসেছে। সালাউদ্দিনকে এ ব্যাপারে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘হ্যাঁ,আমি বাংলাদেশের কোচ হতে চাই। কে হতে চায়না? কিন্তু আমি মনে করি এটা সঠিক সময় নয়। কারণ ইতোপূর্বে অনেকবার আমাকে সহকারী কোচের দায়িত্ব দেওয়ার কথা বলা হয়েছে, কিন্তু কিছুদিন পর ওরাই আবার আমাকে দরকার নেই বলেছে, এই কিছুদিন আগেও এমন ঘটনা ঘটেছে। আমি এসব ঘটনায় অপমানিত বোধ করেছি।’

সন্দেহাতীতভাবে দেশের সেরা কোচদের একজন সালাউদ্দিন। সে দেশের সম্পদ। দেশের সম্পদকে অবহেলা করা বিসিবির স্বভাবই বলা যেতে পারে। যা অনেক প্লেয়ারের ক্ষেত্রে আমরা লক্ষ্য করেছি। অনেকেরই চাওয়া, যদি সাময়িক কোচ নেওয়া হয়,সেটা যেন সালাউদ্দিন হয়।

খেলোয়াড়দের সাথে তার আন্ডারস্ট্যান্ডিংও চমৎকার।আর এমন অনেক ক্ষেত্র আছে,যেখানে সালাউদ্দিনকে বিসিবি চাইলেই নিয়োগ দিতে পারে। আর কবে সজাগ হবে বিসিবি?

Category : ফিচার
Share on your Facebook
Share this post