বাংলাদেশে আটকে নেই অ্যালেক্স হেলস

খেলাধুলা ডেস্ক
ডিসেম্বর ২৮, ২০১৬
  হেলস জানালেন ইসিবিকে ‘না’ বলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া তার জন্য মোটেও সহজ ছিল না।  হেলস জানালেন ইসিবিকে ‘না’ বলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া তার জন্য মোটেও সহজ ছিল না।

তিন মাস আগের কথা। নিরাপত্তার অজুহাতে সীমিত ওভারের অধিনায়ক ইয়ন মরগ্যানের সাথে অ্যালেক্স হেলসও নিরাপত্তার ঝুঁকিতে বাংলাদেশে আসতে অনীহা প্রকাশ করেছিলেন। তার আগে পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডেতে ১৭১ রানের দানবীয় এক ইনিংস খেললেও টেস্ট পারফরম্যান্স দিয়ে হেলস ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ডের নির্বাচক কমিটির মন জয় করতে ব্যর্থ হয়েছিলেন।

ব্রিটিশ মিডিয়া তাই হেলসের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারের শেষ দেখে ফেলেছিল। বাংলাদেশ ও ভারতের মাটিতে বেন ডাকেট, হাসিব হামিদ, কিটন জেনিংসদের পারফরম্যান্সে হেলসের বিদায়টা আরও নিশ্চিত হয়ে উঠেছিল। তবে, সংশয় উড়িয়ে দিয়ে ভারতের বিপক্ষে ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি দলে ফিরেছেন হেলস।

তাই আর বাংলাদেশে আটকে থাকছেন না প্রায় ২৮ বছর বয়সী অ্যালেক্স হেলস। ব্রিটিশ গণমাধ্যম ডেইলি মেইলকে জানালেন, বাংলাদেশে না আসা নিয়ে তার কোনো আক্ষেপ নেই।

তিনি বলেন, ‘নি:সন্দেহে ইংল্যান্ডের সফর বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্য দারুণ একটা খবর ছিল। কিন্তু, ঢাকায় হামলার পর কোনো বিদেশি দলই ওখানে যায়নি। এমনই অস্ট্রেলিয়া দল সফর স্থগিত করেছিল। ফলে, ওখানে গিয়ে আদৌ আমি ক্রিকেটে পুরো মনোযোগ দিতে পারবো কি না সেটা নিয়ে সন্দেহ ছিল। আমি আমার সিদ্ধান্তে স্থীর ছিলাম। সিদ্ধান্তটা নিয়ে আমার এক বিন্দুও আক্ষেপ নেই। এটা তো আর বাকি জীবন বয়ে বেড়ালে চলবে না।’

তবে, হেলস জানালেন ইসিবিকে ‘না’ বলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া তার জন্য মোটেও সহজ ছিল না। তিনি বলেন, ‘সিদ্ধান্ত নেওয়াটা কোনো ভাবেই আমার জন্য সহজ ছিল না। ভেবে ভেবে অনেক নির্ঘুম রাত কাটিয়েছিল। পরিবার-বন্ধুবান্ধব, প্রেমিকার সাথে কথা বলেছি; তারপরই সিদ্ধান্ত নিয়েছি।’

১৫ জানুয়ারি থেকে শুরু হবে ভারত আর ইংল্যান্ডের মধ্যকার তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজ। আর দু’দলের মধ্যকার তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ ২৬ জানুয়ারি থেকে।

Category : ফিচার
Share this post