ঢাকা ডাইনামাইটস: ফাইনালের পাঁচ তুরুপের তাস

উদয় সিনা
ডিসেম্বর ৮, ২০১৬
    ২৫ দিনের মাঠের লড়াই শেষে পাওয়া গেল কাঙ্খিত দুটি দল।     ২৫ দিনের মাঠের লড়াই শেষে পাওয়া গেল কাঙ্খিত দুটি দল।

২৫ দিনের মাঠের লড়াই শেষে পাওয়া গেল কাঙ্খিত দুটি দল। শুক্রবার বিপিএলের চতুর্থ আসরের ফাইনালে মাঠে নামতে যাচ্ছে ঢাকা ডাইনামাইটস ও রাজশাহী কিংস। শক্তিমত্তার বিচারে দুটি দলই কেউ কারোর চেয়ে কম নয়। দেশি বিদেশি খেলোয়াড়দের সমন্বয়ে আসরের সেরা দল দুটিই ফাইনালে উঠেছে। দুদলেই কয়েকজন খেলোয়াড় আছেন যারা যেকোন সময় ম্যাচের মোড় ঘুরিয়ে দেয়ার যোগ্যতা রাখেন। ফাইনালের মত ম্যাচে তাই তাদের দিকে বাড়তি নজর রাখতেই হয়।

চলুন জেনে নিই ঢাকা ডাইনামাইটসের এমন পাঁচজন খেলোয়াড়ের সম্পর্কে।

১. মেহেদি মারুফ 

বিপিএলের চতুর্থ আসরের অন্যতম সেরা আবিষ্কার মেহেদি মারুফ। এখন পর্যন্ত প্রায় প্রতিটি ম্যাচেই রানের ফোয়ারা ছুটিয়েছেন ঢাকা ডিনামাইটসের এই ওপেনার। ঢাকার সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক মেহেদি ১৩ ম্যাচে ২৮.২৫ গড়ে ৩৩৯ রান করে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় আছেন ষষ্ঠ অবস্থানে। তাঁর ১৩১.৮০ স্ট্রাইক রেটই বলে দেয় যে তিনি টি-টোয়েন্টি মেজাজে ব্যাটিং করেন। ফাইনালের মত বিশাল মঞ্চে তাই তাঁর দিকে বাড়তি নজর রাখতেই হবে রাজশাহীর বোলারদের। কারণ মেহেদির ব্যাট চলতে শুরু করলে ঢাকার রান আটকানো কঠিন হয়ে যাবে তাদের পক্ষে।

২. কুমার সাঙ্গাকারা 

টুর্নামেন্টের সেরা দশজন রান সংগ্রাহকের তালিকার অষ্টম স্থানে অবস্থান আরেক ওপেনার কুমার সাঙ্গাকারার। এখন পর্যন্ত ১২ ম্যাচে ২৭.৮৩ গড়ে তাঁর ব্যাট থেকে এসেছে ৩৩৪ রান। ঢাকার হয়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক কুমার সাঙ্গাকারা ধারাবাহিকভাবে রান করে যাচ্ছেন দলের জন্য। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফাইনলের মত বড় বড় ম্যাচে সাঙ্গাকারা ব্যাট হাসতে এর আগে অনেকবার দেখা গেছে। তাই অভিজ্ঞতা ও সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বিচারে ফাইনাল ম্যাচে এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যানকে আলোচনার বাইরে রাখার কোন সুযোগ নেই।

৩. সাকিব আল হাসান 

অধিনায়ক সাকিব আল হাসান বিপিএলের শুরুর দিকে তেমন পারফর্ম করতে না পারলেও সময় বাড়ার সাথে সাথে নিজেকে মেলে ধরেছেন। যদিও বিপিএলের প্রথম দুই আসরের মত পারফরম্যান্স এবার দেখাতে পারেননি সাকিব। তবে এবারের আসরে তাঁর পারফরম্যান্স খুব খারাপও না। ১১ ইনিংসে ব্যাট হাতে সাকিব করেছেন ২০৬ রান ও বল হাতে ১৩ ইনিংসে তুলে নিয়েছেন ১১টি উইকেট। এবারের বিপিএলে ঢাকার হয়ে পরপর দুই ম্যাচে কুমিল্লা ও বরিশালের বিপক্ষে ব্যাটে-বলে পারফর্ম করে ম্যান অব দ্য ম্যাচও হয়েছেন তিনি। তাছাড়া মাঠে তাঁর অধিনায়কত্ব ছিল প্রশংসনীয়। বর্তমানে ব্যাটিংয়ের চেয়ে বোলিংয়ের দিক দিয়ে সাকিব অনেকটা এগিয়ে। আর ম্যাচের যেকোন সময় তাঁর অলরাউন্ড পারফরম্যান্স প্রতিপক্ষের বুকে কাঁপন ধরাতে সক্ষম।

৪. আন্দ্রে রাসেল 

বিধ্বংসী ব্যাটসম্যান হিসেবে পরিচিত আন্দ্রে রাসেল ইনজুরির জন্য এবারের আসরে খেলেছেন মাত্র তিনটি ম্যাচ। ঢাকার সরাসরি ফাইনালে পৌঁছে যাওয়ার কৃতিত্ব কিন্তু তাঁরও আছে। কারণ প্রথম কোয়ালিফায়ারে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়া ঢাকাকে ১৪০ রানের ফাইটিং স্কোর করতে সাহায্য করে রাসেলের ২৫ বলে ৪৬ রানের একটি ঝড়ো ইনিংস। এবারের বিপিএলে তিন ম্যাচে ২৮.৩৩ গড়ে রাসেলের সংগ্রহ ৮৫ রান ও তাঁর উইকেট সংখ্যা ৪ টি। রাসেলের সাম্প্রতিক এই পারফরম্যান্সই বলে দেয় যে ফাইনালে তিনি কতটা বিপজ্জনক হতে পারেন প্রতিপক্ষের জন্য।

৫. ডোয়াইন ব্রাভো 

এবারের বিপিএলে এখন পর্যন্ত সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রহের তালিকার শীর্ষে রয়েছেন ঢাকার ডোয়াইন ব্রাভো। ১২ ম্যাচে ৭.৬২ ইকোনোমিতে তাঁর ঝুলিতে রয়েছে ২০ টি উইকেট। ৮ ইনিংসে ব্যাট করে ব্রাভো সংগ্রহ করেছেন ৯১ রান। ঢাকার হয়ে সাকিবের পাশাপাশি দুইবার পেয়েছেন ম্যান অব দ্য ম্যাচের পুরস্কারও। টুর্নামেন্টে তাঁর এক একটি স্লোয়ার ও ইয়র্কার মোকাবেলা করতে ভালই খাবি খেতে হয়েছে ব্যাটসম্যানদের। বলাই বাহুল্য যে তাঁকে আটকাতে ঘাম ঝড়াতে হবে রাজশাহীর ব্যাটসম্যানদের।

আসলে নিজস্ব শক্তির বিচারে দুদলের প্রতিটি খেলোয়াড়ের সামর্থ্য আছে ফাইনালের সবটুকু আলো নিজের দিকে টেনে আনার। ঠিক যেমনটা গত আসরের ফাইনালে করেছিল অলক কাপালি ম্যাচের শেষদিকে কুমিল্লাকে একাই জয়ের বন্দরে পৌঁছে দিয়ে। তবে যাই হোক। সব বিচার বিশ্লেষণকে ছাপিয়ে ব্যাটে-বলে একটি উপভোগ্য ফাইনালই এখন প্রতিটি ক্রিকেটভক্তের প্রত্যাশা।

Category : ফিচার
Share on your Facebook
Share this post