ভাবিনি বাংলাদেশ এভাবে ম্যাচটা বের করে নেবে: ভিভ রিচার্ডস

খেলাধুলা ডেস্ক
জুন ১৪, ২০১৭
সেমিফাইনালের আগে ভিভ রিচার্ডসের পরামর্শও পেল বাংলাদেশ সেমিফাইনালের আগে ভিভ রিচার্ডসের পরামর্শও পেল বাংলাদেশ

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির বাঁচা মরার লড়াইয়ে শুরুতে ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়েও সে ধাক্কা সামলে ম্যাচ বের করে নেওয়ার পর থেকে প্রশংসার বন্যায় ভাসছে বাংলাদেশ। ম্যাচ পরবর্তী এক টক শো তে ভিভ রিচার্ডসও সে দলে যোগদান করেন। তার কথায় ম্যাচের চুলচেরা বিশ্লেষণের সাথে সাথে উঠে আসে বাংলাদেশ ক্রিকেটের ভবিষ্যৎও।

তিনি বলেন, ‘ম্যাচ জেতার কাজটা অর্ধেক করে রেখেছিলো ডেথ ওভারে বাংলাদেশের অসাধারণ বোলিং। ডেথ ওভারের আগ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের ব্যাটিং দেখে ৩০০ রানকে খুবই সম্ভব মনে হচ্ছিলো। যেটা হয়ে গেলে বাংলাদেশের জেতা এক রকম অসম্ভবই হয়ে যেতো। শেষ পাওয়ার প্লেতে অসাধারণ বোলিংয়ে বাংলাদেশ ভালোভাবেই ম্যাচে ফিরে আসে। আর এতে করে তাদের জয়ের সম্ভাবনাও ক্রমে উজ্জল হয়ে ওঠে।’

বাংলাদেশের ব্যাটিংয়ে শুরুর বিপর্যয়ের প্রসঙ্গ উঠতেই তিনি বলেন, ‘বোল্ট-সাউদি পেস আর সুইংয়ে নাকাল হয়ে এক পর্যায়ে যখন ৩৩ রানের মাথায় ৪ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশ যখন নিজেদের খাদের কিনারায় আবিষ্কার করে তখন ভাবতেই পারিনি তারা এভাবে ব্ল্যাকক্যাপদের মুঠো থেকে ম্যাচ বের করে নেবে! ভেবেছিলাম হয়তোবা নিউজিল্যান্ড বোলাররা বাংলাদেশকে কোনোপ্রকার সুযোগ না দিয়েই ম্যাচ শেষ করে দেবে! সেখান থেকে সাকিব আল হাসান আর মাহমুদুল্লাহ রিয়াদ যেভাবে ম্যাচ বের করে নিলো তা এক কথায় অবিশ্বাস্য!’

উইকেটের সাথে সামঞ্জস্য রেখে যেমন ব্যাটিয় দরকার সেদিন ঠিক সেটাই বাংলাদেশ করেছে বলে মনে করেন বিশ্বকাপজয়ী এই ক্রিকেটার, ‘বাংলাদেশ ইনিংসের শুরুটা বাদ দিলে বাকি সময়টায় ব্যাটে দারুণভাবে বল আসছিলো। বিশেষত, সাকিব রিয়াদের প্রত্যেকটা শটে যেভাবে গুলির বেগে বল সীমানার দিকে যাচ্ছিলো তাতে পিচ ব্যাটিংয়ের জন্য বেশ ভালো বলেই মনে হচ্ছিলো। কিন্তু তা কোনোভাবেই সাকিব-মাহমুদুল্লাহর কৃতিত্বকে ছোটো করতে পারে না।’

সাকিব-মাহমুদউল্লাহ’র দারুণ জুটির ভূয়সী প্রশংসা করে ভিভ বলেন, ‘জুটিটা দুজনের দারুণ বোঝাপড়ার এবং অভিজ্ঞতার প্রমাণ বহন করে। এমন গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে সিনিয়র খেলোয়াড়দের এমন পারফরমেন্স নিশ্চিতভাবে দলটাকে আরো ভালো করার অনুপ্রেরণা প্রদান করবে। নতুন খেলোয়াড়রাও ভবিষ্যতে এমন পরিস্থিতিতে নিজেদের ভেতর ভালো পারফর্ম করার তাড়না অনুভব করবে।’

দলের এমন পারফর্মেন্সে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডেরও (বিসিবি) যথেষ্ট কৃতিত্ব আছে বলে মনে করেন সাবেক ওয়েস্ট ইন্ডিয়ান কিংবদন্তি, ‘বাংলাদেশ দলের কোচিং ইউনিটের নামগুলোর দিকে তাকালেই বোঝা যায় দলের উন্নতির ব্যাপারে কতোটা সিরিয়াস তাদের বোর্ড। বোর্ড তাদের ক্রিকেটকে তৃণমূল পর্যায় থেকে ঢেলে সাজানোর ফলেই আজ এমন একটা দল তারা দাঁড় করাতে পেরেছে।’

ওয়ানডে ইতিহাসের অন্যতম সেরা এ ব্যাটসম্যানের মতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে মাশরাফি বিন মুর্তজার দলের এই পারফরমেন্সকে কোনোভাবেই দৈব কোনো হিসেবে দেখতে নারাজ ভিভ রিচার্ডস, ‘এই পারফরম্যান্সকে আমি ফ্লুক মানতে নারাজ। ক্রমাগত উন্নতি সাধনের ফলেই এমনটা সম্ভব হয়েছে। ভবিষ্যতে এমন পারফর্মেন্স আরো দেখার ব্যাপারে আমি আশাবাদী।’

আত্মতুষ্টি থেকে দূরে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন তিনি বাংলাদেশকে। বলেছেন, ‘চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিতে উঠেই তৃপ্তির ঢেকুর দেয়া চলবেনা বাংলাদেশের। এটা কেবলই শুরু, অদূর ভবিষ্যতে উত্তরোত্তর উন্নতি সাধনে বদ্ধপরিকর থাকতে হবে তাদের।’

Category : খবর
Share on your Facebook
Share this post