স্কাই স্পোর্টসের বিশ্লেষণ: তুরুপের তাস হবেন তিন বাংলাদেশি

মোশারফ জিটু
অক্টোবর ৫, ২০১৬
   তিন বাংলাদেশি ক্রিকেটার   তিন বাংলাদেশি ক্রিকেটার

বাংলাদেশ ক্রিকেটের সবচেয়ে বড় বিজ্ঞাপন সাকিব আল হাসান, কিন্তু তার আড়ালে আরো কয়েকজন ক্রিকেটার আছেন যারা আসন্ন তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে সফরকারী ইংল্যান্ডের জন্য হুমকির কারণ হয়ে উঠতে পারেন।

ভারত, দক্ষিণ আফ্রিকা আর পাকিস্তানের মতো দলগুলোকে নিজেদের মাটিতে হারিয়ে গত ছয়টা হোম সিরিজ নিজেদের করে নেয়া বাংলাদেশকে হারানোটা জশ বাটলারের দলটার জন্য সহজ হবে না। অ্যাডিলেডে গত ২০১৫-র বিশ্বকাপের সেই বিখ্যাত জয় ছাড়াও শেষ চারবারের সাক্ষাত তিনবারই ইংল্যান্ডকে পরাস্ত করেছে বাংলাদেশ।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম স্কাই স্পোর্টসের চোখে সিরিজে বাংলাদেশের তুরুপের তাস হবেন তিন জন। কারা সেই তিনজন? – চলুন জেনে নেওয়া যাক।

  • তামিম ইকবাল

২০০৭ সালে অভিষিক্ত বাঁ-হাতি আগ্রাসী ব্যাটসম্যান তামিম ইকবালের নাম তো সবারই জানা। টপ-অর্ডারে সবসময়কার ভয়ানক এই ব্যাটসম্যান গত বছর দুই সেঞ্চুরিসহ ৪৬ গড়ে ৭৪২ রান করেছেন।

সেই ফর্মের ধারাবাহিকতা ধরে রেখে আফগানিস্তানের বিপক্ষে হোম সিরিজে ৮০ ও ১১৮ রানের দুটো ইনিংস খেলেছেন, যেখানে বাংলাদেশ সিরিজ জিতেছে ২-১ ব্যবধানে। ২০১০ সালে ইংল্যান্ডের শেষ বাংলাদেশ সফরের প্রথম ওয়ানডেতে ১২০ বলে ১২৫ রানের ইনিংস-সহ সব ফরম্যাটেই ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সেঞ্চুরির সুখস্মৃতিও রয়েছে তামিম ইকবালের।

টেস্ট, ওয়ানডে আর টি-টোয়েন্টি – তিন ফরম্যাটেই বাংলাদেশের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তামিম সাদা বলের বিরুদ্ধে সবসময়ই রঙিণ। যত দিন যাচ্ছে, সীমিত ওভারে নিজেকে যেন আরও বেশি মেলে ধরছেন তিনি।

  • মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ

৩০ বছর বয়সী, ১২৮ ওয়ানডে খেলার অভিজ্ঞতাসম্পন্ন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ বাংলাদেশ দলের অন্যতম অভিজ্ঞ সদস্য। পর পর দুটি সেঞ্চুরি করে গত ২০১৫ সালের বিশ্বকাপে তারকা বনে যাওয়া এই ক্রিকেটার সেই আসরেই ৭৩ গড়ে ৩৬৫ রান সংগ্রহ করেন। ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে তার ১০৩ রানের ইনিংসের ওপর ভর করেই বাংলাদেশ বিশ্বকাপে প্রথমবারের মতো নক-আউট পর্বে পৌঁছে যায়।

সম্প্রতি চার নম্বর পজিশনে প্রমোশন পেয়েছেন। মূলত পরিচয়টা একজন মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যানের হলেও তিনি মূলত একজন অলরাউন্ডার। গত ১২ ইনিংসে ৭৪ রানের অবিশ্বাস্য গড়ের পাশাপাশি রিয়াদের রয়েছে দু’টি সেঞ্চুরি ও পাঁচটি হাফ সেঞ্চুরি।

ব্যাটিং-বোলিং দুটিতেই কার্যকর আবার দুটোতেই অসাধারণ এই ক্রিকেটার কাছে থেকে বাংলাদেশ নি:সন্দেহে এবারও বড় কিছুই প্রত্যাশা করবে।

  • তাসকিন আহমেদ

ইনজুরির কারণে দলের বাইরে থাকা বাঁ-হাতি বোলিং-বিস্ময় মুস্তাফিজুর রহমান ও সম্প্রতি ফর্মহীন রুবেল হোসেনের দল থেকে ছিটকে যাওয়ার কারণে পেস বোলিংটা সিরিজে বাংলাদেশের টিম ম্যানেজমেন্টের কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলতে পারে।

এই কারণে নিয়মিত ঘন্টায় ৯০ মাইল গতিতে বলা করা ডান-হাতি তরুণ বোলার তাসকিন আহমেদের কাঁধে থাকবে গুরুদায়িত্ব। আর সেই দায়িত্ব পালন করতে তার রয়েছে দুর্দান্ত কিছু স্লোয়ার ডেলিভারি আর ডেথ ওভারে ইয়র্কার দেওয়ার অসামান্য দক্ষতা।

২০১৪ সালে দৃশ্যপটে আসার পর অভিষেকেই ভারতের বিরুদ্ধে নিয়েছিলেন পাঁচ উইকেট। এছাড়াও ভারতের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালে তিন উইকেট নেয়ার আগে অ্যাডিলেডে গত বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে জশ বাটলারের গুরুত্বপূর্ণ উইকেটটিও নিয়েছিলেন তিনি।

Category : অনুবাদ
Share this post